ভাসোপ্রক্ট কিসের ঔষধ বিস্তারিত জেনে নিন

ভাসোপ্রক্ট কিসের ঔষধ বিস্তারিত জেনে নিন। ভাসোপ্রক্ট ক্যাপসুল: প্রতিটি ক্যাপসুলে রয়েছে ক্যালসিয়াম ডোবিসিলেট বিপি ৫০০ মি.গ্রা.
ভাসোপ্রক্ট অয়েন্টমেন্ট: প্রতি গ্রামে রয়েছে ক্যালসিয়াম ডোবিসিলেট বিপি ৪০ মি.গ্রা., লিডোকেইন হাইড্রোক্লোরাইড বিপি ২০ মি.গ্রা. এবং ডেক্সামিথাসন অ্যাসিটেট বিপি ০.২৫ মি.গ্রা.।

ভাসোপ্রক্ট কিভাবে কাজ করে

ক্যালসিয়াম ডোবিসিলেট কৈশিক জালিকার দেয়ালে কাজ করে তাদের অস্বাভাবিক শারীরবৃত্তীয় ক্রিয়াকলাপগুলো নিয়ন্ত্রণ করে। যেমন-ব্যপ্তিযোগ্যতা বৃদ্ধি ও প্রতিরোধের ক্ষমতা হ্রাস করে এবং প্রদাহের বিভিন্ন লক্ষণের উপর কাজ করে। এছাড়াও এটির অ্যান্টিথ্রোম্বোটিক ক্রিয়াকলাপ রয়েছে। লিডোকেইন হাইড্রোক্লোরাইড একটি স্থানীয় অ্যানেস্থেটিক, যা ব্যথা উপশম করতে অবদান রাখে। ডেক্সামিথাসন অ্যাসিটেট এক ধরণের কর্টিকোস্টেরয়েড যা শরীরের ত্বক বা শৈষ্মিকঝিল্লির মতো পৃষ্ঠগুলোতে প্রয়োগ করা হয় এবং এটি অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি ও অ্যান্টিপ্রিউরিটিক অ্যাকশনের অধিকারী।

ভাসোপ্রক্ট এর কাজ কি

ভাসোপ্রক্ট অভ্যন্তরীণ এবং বাহ্যিক হেমোরয়েডস, এনাল প্রিউরিটাস, এনাল একজিমা, অ্যানাইটিস, তীব্র হেমোরয়ডাল থ্রোম্বোসিস এবং এনাল ফিশারের চিকিৎসার জন্য নির্দেশিত। হেমোরয়েডেক্টমি, নিম্ন অঙ্গগুলোর দীর্ঘস্থায়ী শিরাযুক্ত অপ্রতুলতা (ব্যথা, ক্র্যাম্প, পেরেস্থেসিয়া, শোখ, স্ট্যাসিস, ডার্মাটোসিস) এবং ডায়াবেটিক রেটিনোপ্যাথির মতো নির্দিষ্ট মাইক্রোঅ্যানজিওপ্যাথির ক্ষেত্রে প্রি এবং পোস্ট-অপারেটিভ চিকিৎসায় নির্দেশিত হয়। এটি অ্যাডজুভেন্ট থেরাপি হিসাবে সুপারফিশিয়াল থ্রোম্বোফ্লেবাইটিসেও নির্দেশিত।

ভাসোপ্রক্ট ক্যাপসুল খাওয়ার নিয়ম

ভাসোপ্রক্ট ক্যাপসুল: প্রতিদিন একবার বা দু’বার খাবারের সাথে গ্রহণ করতে হবে। রোগ এবং এর নিবর্তনের উপর নির্ভর করে, চিকিৎসার সময়কাল সাধারণত কয়েক সপ্তাহ থেকে কয়েক মাস পর্যন্ত হতে পারে। রোগের তীব্রতা অনুযায়ী ডোজ পৃথকভাবে দিতে হবে।

ভাসোপ্রক্ট মলম ব্যাবহারের নিয়ম

ভাসোপ্রক্ট অয়েন্টমেন্ট: দৈনিক ২-৩ বার ব্যবহার করতে হবে। প্রতিদিন সকালে ও শোবার সময় এবং সম্ভা হলে মলত্যাগের পরে প্রয়োগ করুন। অয়েন্টমেন্ট ব্যবহারের ক্ষেত্রে অ্যাপ্লিকেটরটি টিউবের সাথে লাগিয়ে ব্যবহার করুন। অ্যাপ্লিকেটরটি মলদ্বারে যতটা সম্ভব গভীরভাবে প্রবেশ করান এবং উত্তোলনের সময় টিউবটি আলতো করে চাপুন। এক্ষেত্রে, টিউবটি ৮ বার প্রয়োগের জন্য পর্যাপ্ত। বাহ্যিক হেমোরয়েডস বা এনাল প্রিউরিটাসের ক্ষেত্রে দিনে বেশ কয়েকবার অয়েন্টমেন্টের একটি পাতলা স্তর প্রয়োগ করুন। চিকিৎসার সময়কাল সাধারণত অল্প কিছু দিন হয়ে থাকে।

ভাসোপ্রক্ট ব্যাবহারে প্রতিনির্দেশনা

ক্যালসিয়াম ডোবিসিলেটের উপাদানগুলোর প্রতি অতিসংবেদনশীলতা।

ভাসোপ্রক্ট ব্যাবহারে সতর্কতা

রেনাল অপর্যাপ্ততার ক্ষেত্রে, ক্যালসিয়াম ডোবিসিলেট দীর্ঘ সময় ধরে ব্যবহার করা উচিত নয়। রোগীরা যদি ফুর মতো লক্ষণ যেমন- কাশি, গলা ব্যথা, জ্বর এবং অন্যান্য সমস্যা অনুভব করেন, তাহলে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব চিকিৎসা নিতে হবে।

ভাসোপ্রক্ট ব্যাবহারে পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া

খুব কম ক্ষেত্রে গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল ব্যধি যেমন- বমি বমি ভাব এবং ডায়রিয়া, ত্বকের প্রতিক্রিয়া, আর্টিকুলার পেইন এবং খুব বিরল ক্ষেত্রে অ্যাগ্রোনুলোসাইটোসিস দেখা গেছে।

গর্ভাবস্থায় ও স্তন্যদানকালীন ভাসোপ্রক্ট এর ব্যবহার

গর্ভাবস্থায় এবং স্তন্যদানকালীন সময় ক্যালসিয়াম ডোবিসিলেটের সুরক্ষা প্রতিষ্ঠিত হয়নি। যেহেতু এটি জানা যায়নি যে ক্যালসিয়াম ডোরিসিলেট মানুষের প্লাসেন্টাল বাধা অতিক্রম করে কিনা, তাই ওষুধটি গর্ভাবস্থায় শুধুমাত্র তখনই গ্রহণ করা উচিত যদি মায়ের উপকার তৃণের সম্ভাব্য ঝুঁকিকে ছাড়িয়ে যায়। এই ওষুধটি ব্যবহার করার সময় বুকের দুধ খাওয়ানো এড়িয়ে চলুন।

ক্যালসিয়াম ডোবিসিলেটের ওষুধ আন্তঃক্রিয়া সম্পর্কিত কোনও তথ্য পাওয়া যায়নি।
সম্ভাব্য ওভারডোজের ক্লিনিক্যাল লক্ষণ জানা যায়নি। ওভারডোজ হয়ে গেলে অবিলম্বে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে পরবর্তী ব্যবস্থা নিতে হবে।

আরো পড়ুন- গ্যাবিসল বা জিরোফ্লাক্স সিরাপ কিসের ঔষধ

Leave a Comment

হারবাল ঔষধের জন্য ক্লিক করুন